জামালগঞ্জ

“জামাল” একটি আরবি শব্দ এর অর্থ হল মনোরম বা সুন্দর এবং ‌“গঞ্জ” শব্দের অর্থ বাজার বা যেখানে ক্রয়-বিক্রয় করা হয়। আবার “গঞ্জ”অর্থ শহরও বোঝায়। সেই অর্থে জামালগঞ্জ হচ্ছে সুন্দর বা মনোরম শহর। আসলেই খুবি সুন্দর এটা উপজেলা হচ্ছে জালামগঞ্জ।
জামালগঞ্জ উপজেলার নামকরণে ভাটীপাড়ার বৃদ্ধ জমিদার মরহুম এখলাছুর রহমান চৌধুরীর মতামত পাওয়া যায়। ১৯৬৪ সালে জনাব এখলাছুর রহমান চৌধুরীর দেয়া তথ্য থেকে জানা যায় যে, তাদের বংশের পূর্ব পুরুষগণের মধ্যে জামাল ফারুকী নামে একজন প্রসিদ্ধ ব্যক্তি ছিলেন। তাকে স্মরণীয় করে রাখার জন্য ভাটীপাড়া এস্টেট কর্তৃক নতুন ক্রয়কৃত দুটি তালুকের নামকরণ করা হয় জামালগড় ও জামালপুর। অতঃপর সাচনা বাজারের সঙ্গে নদীর পশ্চিম পাড়ে প্রতিযোগিতামূলক একটি নতুন বাজার প্রতিষ্ঠিত হলে এর নামকরণ করা হয় জামালগঞ্জ।
জামালগঞ্জ উপজেলার পশ্চিমে মোহনগঞ্জ ও ধর্মপাশা উপজেলা এবং উত্তরে তাহিরপুর উপজেলা ও বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা,দক্ষিণে খালিয়াজুড়ি উপজেলা ও দিরাই উপজেলা, পূর্বে সুনামগঞ্জ সদর উপজেলা রয়েছে।
জামালগঞ্জের ইউনিয়নঃ ৫টি
১।বেহেলী ইউনিয়ন
২।জামালগঞ্জ ইউনিয়ন
৩।ফেনারবাঁক ইউনিয়ন
৪।সাচনা বাজার ইউনিয়ন
৫।ভীমখালী ইউনিয়ন
৬।জামালগঞ্জ উত্তর ইউনিয়ন
আয়তনঃ
৩৩৮.৭৪ বর্গকিমি (১৩০.৭৯ বর্গমাইল)
 •জনসংখ্যা ২০১১ আদম শুমারি অনুযায়ীঃ
মোট জনসংখ্যা: ১,৩৮,৯৮৫
পুরুষ-৮৪,৬১২জন
মহিলা–৮২,৬৪৮জন
সাক্ষরতার হারঃ
২৯.৬৫%
পোস্ট কোডঃ
৩০০০
প্রশাসনিক বিভাগের কোডঃ
৬০ ৯০ ৫০